English Version

সংক্ষিপ্ত তথ্যাবলী

ভর্তির কিছু তথ্য

  • প্রভাতি শিফটে শুন্য আসনের ভিত্তিতে ১ম শ্রেণি থেকে ৯ম শ্রেণি পর্যন্ত মেয়ে এবং ১ম শ্রেণি থেকে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত ছেলেদের ভর্তি করা হয়। দিবা শিফটে শুন্য আসনের ভিত্তিতে ৩য় থেকে ৯ম শ্রেণি পর্যন্ত ছেলেদের ভর্তি করা হয়।

  • সকল শ্রেণির আবেদনপত্র অনলাইনে পূরণ করতে হয়। আবেদনপত্র পুরণের সময় ছাত্র/ছাত্রীর ছবি স্ক্যান করতে হয়। আবেদনের সময় ভর্তি পরীক্ষার ফি বাবদ নির্ধারিত অঙ্কের টাকা মোবাইল ব্যাংকিং/টেলিটকের মাধ্যমে জমা দিতে হয়। ২০১৫ সালে ফি ছিল ১০০/- (একশত টাকা)। আবেদনপত্র যথাযথভাবে পূরণ হলে সাথে সাথেই ভর্তি পরীক্ষার রোল সহ প্রবেশপত্র প্রিন্ট করা যায়।

  • ১ম শ্রেণীতে লটারীর মাধ্যমে নির্বাচিত ছাত্র-ছাত্রীদের ভর্তি করা হয়। ছাত্র-শিক্ষক-অভিভাবকের উপস্থিতিতে লটারী অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচিত ছাত্র-ছাত্রীদের দ্বারা আসন পূরণ না হলে অপেক্ষমান তালিকা থেকে ক্রমানুযায়ী শুন্য আসন পূরণ করা হয়।

  • ২য় থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত ছাত্র-ছাত্রীদের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলা, ইংরেজী ও গণিত বিষয়ের উপর প্রশ্নপত্র প্রণীত হয়। ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলের প্রেক্ষিতে নির্বাচিত ছাত্র/ছাত্রীদের দ্বারা আসন পূরণ না হলে প্রাধিকার অনুযায়ী অপেক্ষমান তালিকা থেকে ভর্তি করা হয়।

  • ৯ম শ্রেণিতে ছাত্র-ছাত্রীদের জেএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে ভর্তি করা হয়। কোন ভর্তি পরীক্ষা হয় না। এক্ষেত্রেও নির্বাচিত ছাত্র/ছাত্রীদের দ্বারা আসন পূরণ না হলে অপেক্ষমান তালিকা থেকে প্রাধিকার অনুযায়ী ছাত্র/ছাত্রী ভর্তি করা হয়।

  • মুক্তিযোদ্ধা কোটা, প্রতিবন্ধী কোটা, শিক্ষা মন্ত্রনালয় কোটায় ভর্তির জন্য আবেদন করলে নির্দিষ্ট তারিখের মধ্যে উপর্যুক্ত প্রমাণপত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের নিকট জমা দিতে হয়।

  • ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ঢাকা মহানগরীর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদেরকে ‘স্বতন্ত্র’ এবং অন্যান্য সকল বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদেরকে ‘সাধারণ’ হিসেবে গণ্য করা হয়।

  • ভর্তি সংক্রান্ত সকল কাজে প্রবেশপত্র, শিক্ষার্থীর ছবি, শিক্ষার্থীর জন্ম নিবন্ধন সার্টিফিকেটের কপি, মাতা-পিতার জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি ইত্যাদির প্রয়োজন হয়।

  • ২০১৬ শিক্ষাবর্ষে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি কার্যক্রম ১ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে। উক্ত তারিখের পূর্বেই বিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ডে যেসব ক্লাসে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে তা জানিয়ে দেয়া হবে।